কোম্পানি বা শপের উপযুক্ত নাম সিলেকশন

কোম্পানি বা শপের উপযুক্ত নাম সিলেকশন

কোম্পানি বা শপের উপযুক্ত নাম সিলেক্ট করা ব্র্যান্ডিং এর প্রথম ধাপ। আপনি যতদিন বিজনেস করবেন, এই নাম আপনার সাথে থাকবে একটা নাম দিয়ে আমরা অনেক সময় মানুষের পরিচয় বুঝি এমনকি তার বংশ পরিচয়ও পেয়ে যাই। আপনার কোম্পানি বা শপের নামও ঠিক এমন হওয়া উচিত। মানুষ যেন আপনার কোম্পানি বা শপের নাম শুনে বুঝে আপনি কি ধরনের পণ্য বা সেবা সেল করছেন কিংবা আপনার ব্যাবসায়িক পরিচয়। তাই বিজনেসের নাম সিলেকশন করার ক্ষেত্রে বিশেষ করে নতুন উদ্যোক্তাদের কিছু বিষয় ভাবা উচিত —

১। এমন নাম রাখলে ভাল হয় যাতে আপনার প্রোডাক্ট বা সার্ভিস এর ব্যাপারে কিছুটা হলেও ধারনা পাওয়া যায়। যেমন ধরুন, আপনি হস্তশিল্প বিক্রি করেন কিন্তু নাম সিলেক্ট করলেন আমিতুমি ডট কম এই নামে শুনে মানুষ কখনই বুঝতে পারবে না আপনি হস্তশিল্প সেল করেন কিন্তু যদি আপনি কারুপণ্য বা কারু ক্রাফট এ ধরনের নাম সিলেক্ট করেন তাহলে সবাই খুব সহজে বুঝে যাবে। আমাদের আসেপাশে এমন অনেক উদাহরণ দেখতে পাবেন। 

২। এমন একটা শব্দ বেছে নিতে পারেন যা স্বাভাবিক ভাবে মানুষ ব্যবহার করে। নামটাকে বেশি বড় না করে চেষ্টা করুন এক থেকে দুটি শব্দ বা ফ্রেযের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখতে।

এছারা সৃজনশীল শব্দ দিয়ে নাম রাখতে পারেন এতে ব্র্যান্ডিং করা অনেক সহজ হবে। চেস্টা করুন অন্যরকম কিছু চিন্তা করতে। নামের মাঝে নতুনত্ব নিয়ে আসুন। শুনতে যেন খুব ভাল লাগে সেদিকে নজর দিন। আপনার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের নাম ইউনিক রাখলে গ্রাহকের আকর্ষণ বাড়বে। দেখুন, পাঠাও নামটা অনেক ছোট এবং সবাই খুব সহজে উচ্চারন করতে পারে। নামটা শুনলেই মানুষ একটা ধারনা পেয়ে যায়। 

তাছাড়া গুগুল, ইউনিলিভার, নকিয়া, হুন্ডাই ইতাদি নামগুলো ভালো করে লক্ষ্য করুন। আমরা তো সবাই জানি চাইনিজ, জাপানিজ কিংবা কোরিয়ান নাম গুলা কঠিন হয় কিন্তু দেখুন তাদের বড় কোম্পানিগুলো এমন নাম নির্বাচন করেছেন যেন বিশ্বের সবার উচ্চারনে সহজ হয় এবং মনে রাখতে পারে।

৩। কোন নির্দিষ্ট পন্যের নামে নামকরণ করা উচিত নয়। আপনি যদি শতভাগ নিশ্চিত থাকেন যে আপনি ওই একটা পণ্য নিয়েই আজীবন ব্যবসা করবেন তবে তা ভিন্ন বিষয়। কিন্তু তারপরও আপনার রিস্ক বেশী থেকে যায় কারন কখনই একটি পণ্যের চাহিদা সারাজীবন থাকে না। প্রতিটি পণ্যের একটা জীবন চক্র থাকে। খুব কম পণ্যই পাবেন যা শুরু থেকে আজ পর্যন্ত একই আছে। 

৪। আপনার এই নাম অন্য কোন কোম্পানির নামের সাথে প্রায় মিলে যাচ্ছে কিনা খেয়াল করুন। “উবার ডট কম” আর “আবার ডট কম” কিংবা “এখনই ডট কম” আর “এখানেই ডট কম” এই দুটো নামের মধ্যে গোলমাল লেগে যাওয়া খুবই সহজ। 

আপনার ব্যবসার নাম সৃজনশীল শব্দ দিয়ে রাখুন তবে এজন্য নতুন নতুন শব্দ তৈরি করতে পারেন। একাধিক শব্দের সংমিশ্রণে সুন্দর একটি নাম বানাতে পারেন। এ ধরনের নাম অনেক বেশি আকর্ষণীয় হয়ে থাকে। কোম্পানি বা শপের নাম নির্বাচন করার আগে namecheckr.com ওয়েবসাইটে চেক করে নিন।

৫। অনেকেই প্রতিষ্ঠানের নাম রাখেন ব্যক্তির নামানুসারে। কিন্তু লক্ষ্য রাখতে হবে সেই ব্যক্তির নামে নামকরণের প্রভাবে পণ্যের বিক্রিতে কতটুকু প্রভাব পরবে। এমন কোন নাম রাখবেন না যেটা শুনলে পণ্যের ব্যাপারে কোন কিছু জানার আগ্রহই থাকবে না। 

ধরুন আমি নাম রাখলাম “মম অনলাইন শপ”, এই নাম শুনে কেউ বুঝবে না আমি কি সেল করি কিংবা আমার ব্যাবসায়িক উদ্দেশ্য কি। নাম নির্বাচন করতে leandomainsearch.com ওয়েবসাইটের সাহায্য নিতে পারেন।

৬। ই-কমার্স বিজনেসের একটা ওয়েব অ্যাড্রেস লাগেই। শুধু ফেইসবুক দিয়ে বেশিদিন ব্যবসা করা কঠিন। আপনি যেই নামটি পছন্দ করেছেন, সেই নামের ডট কম বা ডট বিডি ডোমেইন আছে কিনা দেখে নিন। অধিকাংশ ইংলিশ মৌলিক নামের ডোমেইন-ই ইতোমধ্যে কেউ না কেউ কিনে নিয়েছে। তাই নাম ঠিক করার সময় নেম ডট কম সাইটে গিয়ে চেক করে নিন ডোমেইনটি এভেলেবল কিনা। (ওয়েব অ্যাড্রেস কি তা যদি জেনে না থাকেন তাহলে একটু নেট সার্চ দিলেই পেয়ে যাবেন)

৭। নামের বানানে বিভ্রান্তি ছড়াতে পারে। বাংলা অনেক শব্দ ইংলিশে লিখতে গেলে কিছু বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়। Z, J, G এর মধ্যেও ঝামেলা লাগতে পারে। যেমন “জনতা” বানানে A হবে নাকি O হবে। “খুশি” E দিয়ে নাকি E Y দিয়ে লিখব, এই ধরনের বিভ্রান্তিতে অনেকেই পরতে পারে। ফলস্বরূপ দেখা যেতে পারে, আপনার কাস্টমার আপনার URL টাইপ করতে গিয়ে অন্য কারোটা টাইপ করেছে ভুল করে। ক্ষতি কিন্তু আপনারই হল। অতএব ই-কমার্স সাইটের নাম যদি বাংলা শব্দ দিয়ে রাখতে চান, তাহলে বানানের এই বিষয় টা মাথায় রাখুন। 

আর একটা কাজ করতে পারেন… আপনার সাইটের নাম যত ধরনের বানান দিয়ে লেখা যায় সব গুলো ডোমেইনই আপনি কিনে রাখতে পারেন। এতে অযথা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় পড়তে হবে না।

administrator

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *